[১টি অনুচ্ছেদ] নোবেল করোনাভাইরাস (২০২৩ আপডেট)

নোবেল করোনাভাইরাস অনুচ্ছেদ, নোবেল করোনাভাইরাস অনুচ্ছেদ রচনা, (নোবেল করোনাভাইরাস অনুচ্ছেদ for Class 1, 2, 3, 4, 5, 6, 7, 8, 9, 10) (নোবেল করোনাভাইরাস অনুচ্ছেদ ১ম, ২য়, ৩য়, ৪র্থ, ৫ম, ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম শ্রেণি) (নোবেল করোনাভাইরাস অনুচ্ছেদ pdf, বাংলা, লিখি, 100 - 150 শব্দ, লিখন, 2023, ক্লাস ১০, ssc, hsc, jsc)

[১টি অনুচ্ছেদ] নোবেল করোনাভাইরাস (2022 আপডেট)

"নোবেল করোনাভাইরাস অনুচ্ছেদ"

করোনাভাইরাস বলতে মূলত একটি গোত্র বা পরিবারকে বোঝায়, যেখানে অসংখ্য ভাইরাস একসাথে থাকে। এই পরিবারের সর্বশেষ আবিষ্কৃত ভাইরাসটির নাম দেওয়া হয়েছে 'নভেল করোনাভাইরাস বা এনসিওভি-১৯'। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে সর্বপ্রথম এই ভাইরাস ধরা পড়ে। ধারণা করা হয় সেখানকার কোনো ভাইরাস সংক্রমিত প্রাণী বিশেষত বাদুড় বা সাপজাতীয় কোনো প্রাণীই এই ভাইরাসের উৎস। এই ভাইরাস মূলত মানুষের ফুসফুসে সংক্রমণ ঘটায়। প্রধানত মানুষের শ্বাসনালির জলকণার মাধ্যমে এটি ছড়ায়। করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তির মাঝে জ্বর, সর্দি, কাশি, গলাব্যথা, মাথাব্যথা, শ্বাসকষ্ট, স্বাদ ও গন্ধ হারিয়ে যাওয়া, বমি, ডায়রিয়া প্রভৃতি উপসর্গ দেখা যায়। এ ভাইরাসের আক্রমণে সারাবিশ্বে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। ৭ ডিসেম্বর-২০২০ পর্যন্ত বিশ্বে ১৫ লক্ষাধিক মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। এই ভাইরাস বিশ্বের প্রায় সব দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। সে কারণে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা একে বৈশ্বিক মহামারি হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে। এই ভাইরাস থেকে বাঁচতে WHO প্রদত্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, জনসমাগম এড়ানো ও পুষ্টিকর খাবার গ্রহণের মাধ্যমে শরীরের ইমিউনিটি বৃদ্ধি করাই হবে সেরা প্রতিকার ব্যবস্থা। কোনো উপসর্গ ছাড়াও এ ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটতে পারে। তাই নিজস্ব সুরক্ষা নিশ্চিত করতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা জরুরি। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এ ভাইরাসের টিকা আবিষ্কারে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে এবং বেশ কয়েকটি দেশ ইতোমধ্যে সফল হয়েছে।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url