বাংলাদেশের পোশাক শিল্প অনুচ্ছেদ [১টি] - (২০২৩ আপডেট)

বাংলাদেশের পোশাক শিল্প অনুচ্ছেদ, বাংলাদেশের পোশাক শিল্প অনুচ্ছেদ রচনা, (বাংলাদেশের পোশাক শিল্প অনুচ্ছেদ Class 1, 2, 3, 4, 5, 6, 7, 8, 9, 10) (বাংলাদেশের পোশাক শিল্প অনুচ্ছেদ ১ম, ২য়, ৩য়, ৪র্থ, ৫ম, ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম শ্রেণি) বাংলাদেশের পোশাক শিল্প অনুচ্ছেদ নিচে দেওয়া হয়েছে। 100 - 150 শব্দ, লিখন, 2023, ক্লাস ১০, jsc, ssc, hsc)

বাংলাদেশের পোশাক শিল্প অনুচ্ছেদ [১টি] - (২০২৩ আপডেট)

"বাংলাদেশের পোশাক শিল্প অনুচ্ছেদ"

বাংলাদেশ শিল্পের দেশ নয় । তথাপি যেসব শিল্পে বাংলাদেশ প্রভূত উন্নতি সাধন করেছে তাদের মধ্যে পােশাক শিল্পের নাম সর্বাগ্রে উল্লেখযােগ্য। রপ্তানি বাণিজ্যে এ শিল্পের অবদান উৎসাহজনক। ১৯৮৫ সালে তৈরি পোশাক শিল্পের সম্প্রসারণ মূলত ব্যাপকভাবে শুরু হয়। বিগত বছরগুলোতে আন্তর্জাতিক বাজারে চাহিদা ও দেশীয় উদ্যোগের সক্রিয় ভূমিকার ফলে পোশাক শিল্প একটি মজবুত কাঠামোর ওপরে দাঁড়িয়েছে এবং বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। বাংলাদেশে বর্তমানে অসংখ্য পোশাক কারখানা গড়ে উঠেছে। আর এসব কারখানায় বহু মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। বলা হয় সস্তা শ্রম পোশাক শিল্পকে সম্প্রসারণের সুযোগ করে দিয়েছে। বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের সবচেয়ে বড় বাজা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়া কানাডা, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি, বেলজিয়াম ও মধ্যপ্রাচ্যের কিছু দেশ। জাপান,অস্ট্রেলিয়া ও রাশিয়াতেও বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের বাজার সম্প্রসারিত হচ্ছে। তবে দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতা এ শিল্পের উৎপাদন ব্যাহত করছে। হরতাল,অবরোধের কারণে পোশাক শিল্প মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এছাড়া আমদানিকারক দেশগুলো কোটা পদ্ধতি প্রয়োগ করে বাধা সৃষ্টি করছে যা বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের প্রসারের অন্তরায়। তাই বলা যাত বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন ও দেশের ক্রমবর্ধমান বেকার সমস্যা সমাধানের জন্য তৈরি পোশাক শিল্পের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এক্ষেত্রে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোক্তাদের একসাথে কাজ করতে হবে।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url