মাদককে না বলুন অনুচ্ছেদ [১টি] - (২০২৩ আপডেট)

মাদককে না বলুন অনুচ্ছেদ, মাদককে না বলুন অনুচ্ছেদ রচনা, (মাদককে না বলুন  অনুচ্ছেদ Class 1, 2, 3, 4, 5, 6, 7, 8, 9, 10) (মাদককে না বলুন অনুচ্ছেদ ১ম, ২য়, ৩য়, ৪র্থ, ৫ম, ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম শ্রেণি) মাদককে না বলুন অনুচ্ছেদ নিচে দেওয়া হয়েছে। 100 - 150 শব্দ, লিখন, 2023, ক্লাস ১০, jsc, ssc, hsc)

মাদককে না বলুন অনুচ্ছেদ [১টি] - (২০২৩ আপডেট)

"মাদককে না বলুন অনুচ্ছেদ"

বর্তমান বিশ্বে যে কয়টি মারাত্মক সমস্যা সম্মুখীন হচ্ছে তার মধ্যে মাদকাসক্তি অন্যতম। যা অর্থনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পারিবারিক মহামারি আকার ধারণ করেছে। “মাদককে ‘না’ বলুন” -কেবল এই স্লোগানের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকার সময় এখন আর নেই। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত মাদকের বিস্তার, মাদকব্যবসায়ী ও মাদকসেবীদের দোর্দণ্ড প্রতাপ যেভাবে প্রকটিত হচ্ছে তাতে এখনই তাদের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী তীব্র সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা ছাড়া উপায়ান্তর নেই। কেবল সরকারের পক্ষে এর মূলোৎপাটন করা খুব কঠিন। কাজেই সরকারকে সক্রিয় সহযোগিতা করার জন্য সমাজকে সাহসী ভূমিকায় অগ্রণী হতে হবে। মাদকবিহীন সুষ্ঠু ও কল্যাণকর সমাজ গড়ে তোলার স্বার্থে এখনই “মাদককে ‘না’ বলুন” স্লোগান কার্যকর করার অঙ্গীকার গ্রহণ করতে হবে। কারণ ড্রাগ বা মাদকাসক্তি আধুনিক সভ্যতাকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে ভয়ংকর অভিশাপ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। আমাদের দেশে মাদকাসক্তের সংখ্যা ৫০ লাখেরও বেশি। তারপর ধীরে ধীরে লিভার, কিডনি অকেজো হয়ে যায়। মস্তিষ্ক, হৃদযন্ত্র, ফুসফুস ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে জীবন্মৃত অবস্থায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। মাদকাসক্তরা পরিবারের সুখ-শান্তি নষ্ট করে, নেশার খরচ জোগাতে দিয়ে ভয়ংকর অপরাধী হয়ে পড়ে। এভাবে পরিবার, সমাজ তথা রাষ্ট্রে অপরাধপ্রবণতা বৃদ্ধি পেয়ে একটা অস্থির ও বিপর্যস্ত অবস্থার সৃষ্টি হয়। মানসিকভাবে বিপর্যস্ত অসংখ্য মানুষ মাদকদ্রব্য গ্রহণ করে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে তরুণ সমাজ ভয়াবহভাবে মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ছে। তাই নিরাপদ পরিবার, সমাজ, দেশ, জাতি গঠনে মাদককে না বলুন।


Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url