নবান্ন উৎসব অনুচ্ছেদ [১টি] - (২০২৩ আপডেট)

নবান্ন উৎসব অনুচ্ছেদ, নবান্ন উৎসব অনুচ্ছেদ রচনা, (নবান্ন উৎসব অনুচ্ছেদ Class 1, 2, 3, 4, 5, 6, 7, 8, 9, 10) (নবান্ন উৎসব অনুচ্ছেদ ১ম, ২য়, ৩য়, ৪র্থ, ৫ম, ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম শ্রেণি) (নবান্ন উৎসবঅনুচ্ছেদ নিচে দেওয়া হয়েছে। 100 - 150 শব্দ, লিখন, 2023, ক্লাস ১০, jsc, ssc, hsc)

নবান্ন উৎসব অনুচ্ছেদ [১টি] - (২০২৩ আপডেট)

"নবান্ন উৎসব অনুচ্ছেদ রচনা"

আজ থেকে কয়েক বছর আগেও নবান্ন উৎসব যেন গ্রামীণ জীবনের একটি অভিন্ন অংশ ছিল। যদিও দিনদিন তা কমে যাচ্ছে। নবান্ন উৎসব এর মধ্যে অন্যতম। বাংলাদেশের অধিকাংশ জনগণই কৃষিজীবী। কঠিন মাটিকে তারা তাদের শ্রম ও শক্তির দ্বারা নমনীয় করে সেখানে প্রাণের জোয়ার সৃষ্টি করে। রোদ-বৃষ্টি মাথায় নিয়ে অসম্ভব খাটুনির পর খেতের সোনালি ফসল যখন তারা ঘরে তুলতে পারে তখন তাদের প্রাণেও আনন্দের বান ডেকে যায়। নবান্ন উৎসব এই আনন্দমুখর প্রাণেরই উৎসব। মেহন্তের শুরু থেকেই সারা বাংলার ঘরে ঘরে ফসল তোলার ধুম পড়ে যায়। তখন এই লোকউৎসব গ্রামবাংলার ঘরে ঘরে পালিত হয়। উৎসবের দিন ভোর না হতেই ছেলেমেয়েরা ঘরের বাইরে এসে ছড়া কেটে দাঁড় কাকদের নিমন্ত্রণ করত। এ দিন ভোরে নতুন ধানের নতুন চাল ঢেঁকিতে কোটা হয়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ির প্রবীণরা পরলৌকিক ক্রিয়া সম্পন্ন করেন এবং ছোট ছেলে-মেয়েরা নতুন জামা-কাপড় পরে। এরপর বাড়ির উঠোনে গর্ত করে জ্যান্ত কই মাছ ও দুধ দিয়ে একটি বাঁশ পোঁতা হয়। একে বলে ‘বীর বাঁশ’। বীর বাঁশের প্রতিটি কঞ্চিতে নতুন ধানের ছড়া বাঁধা হয়। বীর বাঁশ পোঁতার পর একটি কলার খোলে চাল মাখা কলা ও নারকেলের নাড়ু কাককে খেতে দেওয়া হয়। কাককে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠিত এ পর্বটির নাম ‘কাকবলি’। এই অনুষ্ঠান শেষ না হওয়া পর্যন্ত কেউ আহার করে না। শস্যের অধিষ্ঠাত্রী দেবী লক্ষ্মীকে পূজা এবং নবান্ন দিয়ে পরে সকলে আহার করে। দেশীয় ঐতিহ্যকে ধারণ করে চলে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান। নবান্ন উৎসবে মানুষের মনে আনন্দের জোয়ার বয়ে যায়।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url