সত্যবাদিতা অনুচ্ছেদ [৩টি] - (২০২৩ আপডেট)

সত্যবাদিতা অনুচ্ছেদ, সত্যবাদিতা অনুচ্ছেদ রচনা, (সত্যবাদিতা অনুচ্ছেদ Class 1, 2, 3, 4, 5, 6, 7, 8, 9, 10) (সত্যবাদিতা অনুচ্ছেদ ১ম, ২য়, ৩য়, ৪র্থ, ৫ম, ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম শ্রেণি) সত্যবাদিতা অনুচ্ছেদ নিচে দেওয়া হয়েছে। 100 - 150 শব্দ, লিখন, ২০২৩, ক্লাস ১০, jsc, ssc, hsc)

"সত্যবাদিতা অনুচ্ছেদ"

যে সব গুন মানব চরিত্রকে মহিমান্বিত করে তোলে তার মধ্যে একটি মূল্যবান গুন হলো সত্যবাদিতা বা সততা। এটি মানুষের অন্যতম একটি মহৎ গুন। সত্য মুক্তি দেয় আর মিথ্যা ডেকে আনে ধ্বংস।  তাই বলা হয়ে থাকে সত্যের চেয়ে বড় গুন আর নেই। সত্যবাদিতা সত্যের শক্তিতে বলীয়ান। এ শক্তি মানুষকে সৎ, নির্লোভ, ত্যাগী জীবনের দিকে পরিচালিত করে। আর মিথ্যা মানুষকে লোভ-লালসা, ভোগ ও স্বার্থপরতায় নিমজ্জিত করে। সত্যবাদী মানুষকে কোনো মূল্যেই কেনা যায় না। ন্যায়, সত্য ও সুন্দরের পূজারি। সত্যবাদী সব সময়ই নৈতিক শক্তিতে বলীয়ান। সে ব্যক্তিত্ববান, নিরপেক্ষ, কর্মবাদী ও পরোপকারী। সে কোনো হুমকি, জবরদস্তি, ভয়-ভীতিকে প্রশ্রয় দেয় না। এমনকি মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়েও সত্য কথা বলতে কিছুমাত্র দ্বিধা করে না। নিজের জন্য যেমন, তেমনি অন্যের কল্যাণেও নিজের অর্থ, শ্রম, মেধা ব্যয় করতে কিছুমাত্র ভাবে না। অথচ আমাদের চারপাশের সমাজজীবনে মিথ্যাচার এমনভাবে ঘিরে ধরেছে যে মনে হয় সত্যবাদিতার আদর্শ ও মহিমা যেন মুহূর্তেই হ্রাস পেয়ে যাবে। অবশ্য মাঝে মাঝে মিথ্যাচার জয়ী হলেও তা নিতান্ত সাময়িক। কেননা সত্যের মহিমায় সত্যবাদিতা চিরকালই ছিল, চিরকালই থাকবে।

"সত্যবাদিতা Class 8"

এই মহাবিশ্ব চির সত্যের উপর দন্ডায়মান। সত্য ও বিশ্বাসের মধ্য দিয়ে মানুষ তার নিজেকে আবিষ্কার করে এবং মনুষ্যত্বকে অর্জন করে। সত্য পথের অনুসারী সত্য পথ থেকে বিচ্যুত না হওয়ার ক্ষেত্রে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ থাকায় পাপ-পঙ্কিলতা তাকে স্পর্শ করতে পারে না। সত্যবাদিতা মানব চরিত্রের উজ্জ্বল অলংকার। সত্যের চর্চা মানবজীবনকে সফলতার স্বর্ণদুয়ারে সহজেই পৌঁছে দিতে পারে। সত্য পথের দিশা খুঁজে পেলে কারো জীবনে আর পাপের স্থান থাকে না। বাস্তব জীবনে সত্যবাদিতার মতো গুণ আর নেই। এই গুণের মাধ্যমে সমাজের সকল দুরাচার ও অন্যায় রোধ করা সম্ভব। সমাজের নিম্নস্তর থেকে উচ্চস্তর পর্যন্ত সকলে যদি সত্যের অনুসারী হয়ে চলে তবে সকল অসংগতি দূর করা সম্ভব। সুখ-শান্তি আর সুন্দর জীবনের স্বাদ পেতে হলে জীবনকে সত্যের সাথে সম্পৃক্ত করতে হবে। সত্যবাদী ব্যক্তিকে সবাই বিশ্বাস করে। যিনি সত্যবাদী তিনি অন্যদের আদর্শ হিসেবেও পরিগণিত হন। পক্ষান্তরে মিথ্যাবাদীকে কেউ পছন্দ করে না, বিশ্বাস করে না এমনকি তাকে কেউ সম্মান করে না। একজন মিথ্যাবাদীকে সবাই এড়িয়ে চলতে চায়। মিথ্যার ফলে সমাজে সৃষ্টি হয় নানা ধরনের সংঘাত ও জটিলতা। মিথ্যা মানুষকে ধ্বংসের পথে নিয়ে যায় আর সত্য মানুষকে সম্মানের শিখরে নিয়ে যায়। সত্য খুবই কঠিন।

"সত্যবাদিতা Class 7"

সত্যবাদিতা মানবজীবনের একটি শ্রেষ্ঠ গুণ। যে সব গুণ মানবজীবনকে সার্থক ও সুন্দর করে তােলে তার মধ্যে সত্যবাদিতার স্থান সবার ওপরে। সত্যকে অনুসরণ করলে জীবন সুন্দর হয়। আপনি যদি সত্য জীবনযাপন করেন তবে জীবনে সাফল্য আপনার হবে। সত্যবাদিতা থেকে বিচ্যুতির ফল হল নৈতিক অবক্ষয়। সমাজে অবৈধ কর্মকাণ্ড ব্যাপক আকার ধারণ করেছে, ফলে মানুষের মহৎ গুণাবলী ক্ষুণ্ন হচ্ছে। ফলে অনেকেই বিভিন্ন অন্যায়ের সাথে জড়িত। সমাজে বিশৃংখলা চলছে। দেশ তখন অশান্তিতে। অন্যায়-অবিচার দেশকে প্লাবিত করে ধ্বংসের দিকে নিয়ে গেছে। সত্যিকারের মানুষ হতে হলে আমাদের অবশ্যই সততা ও সত্যবাদিতার জীবনযাপন করতে হবে। সত্যবাদী লোকেরা তাদের সামাজিক জীবনে কী করে তা বিবেচ্য নয়। সে সকলের প্রতি আকৃষ্ট হয় এবং সবাই তাকে শ্রদ্ধা করে এবং ভালবাসে। এটি আপনাকে অন্যান্য মানবিক গুণাবলী বিকাশ করতে সহায়তা করে। অন্যান্য সমস্ত ত্রুটিগুলি ধীরে ধীরে দূর হয়। সত্যবাদী ব্যক্তি একটি আত্মবিশ্বাসী চিন্তাশীল, যখন মিথ্যাবাদী একটি ভীরু এবং দুর্বল হৃদয়। সত্যকে যারা মর্যাদা দেয় না তারা উদার হতে পারে না, তাদের মনে চিরদিন ভয় বিরাজ করে।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url